Funny

ঝড়ের নাম ‘ফেনী না ফণী’ এই তর্কে দুই পক্ষের ব্যাপক সংঘর্ষ। আহত- ৯ জন

ঝড়ের আতংকে সারাদেশ যখন ভীত তখন সম্পুর্ন অহেতুক বিষয় নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়েছে একদল যুবক। রামপুরা এক চায়ের দোকানে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ঝড়ের নাম সঠিক কি? ফেনী? না ফণী? এই তর্ক করতে করতে দুই ভাগ হয়ে যায় চায়ের দোকানের লোকজন। তারপর তর্ক বাড়তে থাকে, এক পর্যায়ে বেধে যায় সংঘর্ষ। আর এতেই আহত হয়েছে নয়জন যুবক।

এদিকে এই যুবকেরা যখন অহেতুক ব্যাপার নিয়ে সংঘর্ষ করছে, তখন ভারতে আঘাত হেনেছে ফণী।

ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে ভারতের ওডিশা রাজ্য দুই ব্যক্তির নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আজ শুক্রবার এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

ওডিশা রাজ্যের বিশেষ ত্রান কমিশনার বিষ্ণুপদ শেঠি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি এখন পর্যন্ত দুই ব্যক্তির নিহত হওয়ার তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করতে পারি।’

ওডিশার এই ত্রাণ কর্মকর্তা জানান, ঘূর্ণিঝড় ফণী চলাকালে এক বয়স্ক ব্যক্তি একটি আশ্রয়শিবিরে হৃদ্রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। আরেক ব্যক্তি সতর্কতা উপেক্ষা করে ঘূর্ণিঝড়ের মধ্যে বাইরে যান। তাঁর ওপর গাছ পড়লে তিনি নিহত হন।

ঘূর্ণিঝড়ে রাজ্যে অনেক গাছপালা উপড়ে পড়েছে। বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে গেছে। রাজ্যের অনেক এলাকায় বিদ্যুৎ–সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ভারী বৃষ্টিতে কোনো কোনো এলাকা ডুবে গেছে।

সকালে ওডিশা রাজ্যের উপকূলে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় ফণী। ফণীর প্রভাবে প্রচণ্ড ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যায়। একই সঙ্গে ভারী বৃষ্টি হয়।

আবার পড়ুন

ঝড়ের আতংকে সারাদেশ যখন ভীত তখন সম্পুর্ন অহেতুক বিষয় নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়েছে একদল যুবক। রামপুরা এক চায়ের দোকানে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ঝড়ের নাম সঠিক কি? ফেনী? না ফণী? এই তর্ক করতে করতে দুই ভাগ হয়ে যায় চায়ের দোকানের লোকজন। তারপর তর্ক বাড়তে থাকে, এক পর্যায়ে বেধে যায় সংঘর্ষ। আর এতেই আহত হয়েছে নয়জন যুবক।

এদিকে এই যুবকেরা যখন অহেতুক ব্যাপার নিয়ে সংঘর্ষ করছে, তখন ভারতে আঘাত হেনেছে ফণী।

ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে ভারতের ওডিশা রাজ্য দুই ব্যক্তির নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আজ শুক্রবার এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

ওডিশা রাজ্যের বিশেষ ত্রান কমিশনার বিষ্ণুপদ শেঠি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি এখন পর্যন্ত দুই ব্যক্তির নিহত হওয়ার তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করতে পারি।’

ওডিশার এই ত্রাণ কর্মকর্তা জানান, ঘূর্ণিঝড় ফণী চলাকালে এক বয়স্ক ব্যক্তি একটি আশ্রয়শিবিরে হৃদ্রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। আরেক ব্যক্তি সতর্কতা উপেক্ষা করে ঘূর্ণিঝড়ের মধ্যে বাইরে যান। তাঁর ওপর গাছ পড়লে তিনি নিহত হন।

ঘূর্ণিঝড়ে রাজ্যে অনেক গাছপালা উপড়ে পড়েছে। বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে গেছে। রাজ্যের অনেক এলাকায় বিদ্যুৎ–সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ভারী বৃষ্টিতে কোনো কোনো এলাকা ডুবে গেছে।

সকালে ওডিশা রাজ্যের উপকূলে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় ফণী। ফণীর প্রভাবে প্রচণ্ড ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যায়। একই সঙ্গে ভারী বৃষ্টি হয়।