Funny

নোয়াখালীর বন্ধুকে একবছর যাবৎ দুষ্টুমি করে বাথরুমে আটকে রেখেছে ৫ মেস মেম্বার

খেলার ছলে টানা একবছর যাবৎ রুমমেট যুবককে মেসের বাথরুমে আটকে রাখার অভিযোগ উঠেছে রাজধানীর রামপুরা এলাকার একটি মেসের ৫ যুবকের বিরুদ্ধে। দুষ্টমি করে তারা একবছর তাদের নোয়াখালীর রুমমেট রাইছুলকে বাথরুমে তালাবদ্ধ করে রেখেছে। এ ঘটনায় সম্প্রতি দেশব্যাপী আলোড়ন জেগে উঠেছে।

ঘটনার সুত্রপাত হয় ২০১৮ সালের জুন মাসে। দুপুরের খাবার মেন্যুতে মুরগির মাংস রান্না করা হবে বলে মেসের সবাই যখন বাজার করার জন্য টাকা তুলছিলো, তখন রাইছুল মুরগি খাবেনা বলে অস্বীকৃতি জানায়। সে সবাইকে মিষ্টি কুমড়া ভাজি ও নিরামিষের তরকারী রান্না করার পরামর্শ দেয়। একপর্যায়ে তর্কবিতর্কের পর একরকম বাধ্য হয়েই সে মুরগি কেনার টাকা দিবে বলে বাথরুমে চলে যায়। এরপর বেলা পেরিয়ে দুপুর হয়ে গেলেও রাইছুল আর বাথরুম থেকে বের হয়নি।

রাইছুলের এমন আচরণে ক্ষুদ্ধ হয়ে মেস মেম্বাররা তখন একত্রিত হয়ে তালা কিনে আনে এবং বাথরুমের দরজার সামনে গিয়ে বলে, “তুই যখন বাথরুমেই থাকবি, বাইর হবিনা, তাইলে থাক তুই বাথরুমে। তালা মেরে দিলাম।”

এর পরপরই রাইছুল দৌড়ে দরজার কাছে ছুটে আসে এবং দরজা টেনে খোলার চেষ্টা করে। কিন্তু ততক্ষণে বাইরে থেকে তালা মেরে দেয়া হয়েছে।

রাইছুল কি খেয়ে বেঁচে আছে, এমন প্রশ্নের জবাবে ওই মেস মেম্বারদের একজন বলেন, “বাথরুমের দরজার নিচে যথেষ্ট ফাঁকা স্পেস আছে। সেখান দিয়ে তাকে বাটিতে করে খাবার পাঠানো হয়। পানি খায় কল থেকে। আর কাপড়চোপড় সাথেই আছে। সেগুলোই ধুয়ে ব্যবহার করে।”

রাইছুলকে পোষা পাখির মত লালনপালন করে ওই মেসের ৫ সদস্য সহ তাদের বাড়িওয়ালাএ বেশ আনন্দ পাচ্ছে। ২০১৯ সালে মেবাইলে পেট গেমস নামে একধরণের গেমস ছিলো, যেখানে একটা বানর বা বন্যপ্রাণীকে খাবার দিয়ে পুষতে হত। ছোট থেকে বড় করা হত। রাইছুলকে বাথরুমে আটকে রেখে সেই হারিয়ে যাওয়া পেট গেমস খেলার মজা পাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ওই ৫ মেস মেম্বার।