Crime

চায়ে দুধ কম দেয়ায় পালাক্রমে বুয়াকে শাস্তি দিলো ৫ মেস মেম্বার

আজ সন্ধ্যায় রামপুরায় ঘটে গেলো এক অমানবিক ঘটনা। দেশের বুদ্ধিজীবীদের ধারণা, এবছরের সবচেয়ে লজ্জাজনক ঘটনা এটি।

গুগোলে চাকরি পেতে এখানে ক্লিক করুন

এই অমানবিক ঘটনা ঘটিয়েছে রামপুরার ৫ মেস মেম্বার। চায়ে সামান্য দুধ কম হওয়াকে কেন্দ্র করে বুয়াকে পালাক্রমে শাস্তি দিয়েছে তারা।

জানা যায়, সন্ধ্যায় নাস্তার সাথে বুয়াকে বেশি বেশি দুধ দিয়ে চা বানাতে বলে তারা। বুয়ার বানানো দুধের চা খেয়ে শরীর ও মনকে চাঙ্গা করতে চেয়েছিলো তারা। কিন্তু খাওয়ার সময় বুঝতে পারে চায়ে বুয়া দুধ কম দিয়েছে। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে তারা। টিটু নামের এক মেস মেম্বার বুয়াকে উদ্দেশ্য করে চিল্লাতে শুরু করে। আর বলতে থাকে, বুয়া তোমার চায়ে দুধ কম দিছো কেনো? এতো দুধ দিয়ে তুমি করবে টা কি? তুমি আমাদের বঞ্চিত করেছো।

এ সময় সে চায়ের কাপ ছুড়ে মারে বুয়ার বুকের দিকে। তারপর বুয়াকে কিচেন থেকে টানতে টানতে রুমে নিয়ে আসে সবুজ আর কবির নামের দুই মেস মেম্বার। আর ধাপ করে দরজা লাগিয়ে দেয় জুনায়েদ নামের আরেক মেস মেম্বার। তারপর যার যার নিজস্ব লাঠি দিয়ে বুয়াকে পালাক্রমে শাস্তি দেয় এই চার মেস মেম্বার।

বুয়ার কাছ থেকে জানা যায়, টিটু নামের মেস মেম্বার সবচেয়ে বেশি শাস্তি দিয়েছে তাকে। এমনকি টিটু বুয়ার মুখে শক্ত স্কেল ঢুকিয়ে দিয়েছিলো।

তবে বুয়া আরেকটি বিষয় জানায়, জনি নামের মেস মেম্বার কিছু করেনি। চুপচাপ জানালা দিয়ে উদাস হয়ে রাস্তার দিকে তাকিয়ে ছিলো।

অন্য সব মেস মেম্বারেরা যখন বুয়াকে শাস্তি দিচ্ছে, তখন কেনো জনি চুপচাপ উদাস হয়ে বাইরের দিকে তাকিয়েছিলো? -এ প্রশ্নে এক মেস মেম্বার নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, জনি হলো আর্জেন্টিনার সাপোর্টার। কোপা আমেরিকায় আর্জেন্টিনা হারার পর থেকে জনি চুপচাপ হয়ে গেছে। ঘর থেকে বের হয়না, রাতে ভাত খায় না। অনেক সময় রাতে ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কাঁদতে শোনা যায়। জনির সাথে আমরা কথা বলতে চাইলে জনি আমাদের বলে, বিরক্ত করো না তো।