Exclusive

নোয়াখালীর প্রেমিক নাইমকে নিজের দেশ ব্রাজিলে নিয়ে যাচ্ছেন প্রেমিকা!

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরিচয় অতঃপর প্রেম। ব্রাজিল থেকে প্রেমিকা আমদানী করা প্রেমিকের বাড়ি নোয়াখালী জেলায়। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক জনতা এক নজর দেখার জন্য ভিড় জমায় ওই প্রেমিকের বাড়িতে।

নাইম-লিকাবো জুটির আলোচিত ভিডিও দেখুন এখানে

তারপর তাদের দু’জনের শুভ পরিণয়ও ঘটে। ২০১৯ সালের ৩১ নভেম্বর ব্রাজিল কন্যা দেশের উদ্দেশ্যে চলে যান। অবশেষে ব্রাজিল কন্যার স্বামী নাইম তার আমন্ত্রণে ব্রাজিল যাচ্ছেন।

জানা গেছে, নোয়াখালীর মিষ্টি দোকানী সেলিম শেখের ছেলে শ্যামলী পরিবহনের ঢাকা-চট্টগ্রাম সার্ভিসের কর্মী নাইমের সাথে ফেইসবুকে প্রেমের পরিণয়ের প্রেক্ষিতে তার বাড়িতে ব্রাজিল থেকে ছুটে আসে লিকাবো নামের ওই প্রেমিকা।

২০১৯ সালের ২১ নভেম্বর ব্রাজিল থেকে রওনা হয়ে লিকাবো ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে আসেন। সেখানে আগে থেকেই অপেক্ষমান প্রেমিক নাইম শেখ তাকে নিয়ে গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী আসে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকার বিভিন্ন বয়সী নারী-পুরুষ ওই জুটিকে একনজর দেখতে নাইমের বাড়িতে ভীড় জমায়। উৎসুক জনতার ঢল নামে তাদের বাড়িতে।

মিডিয়ার বদৌলতে দ্রুত আলোচিত হয় এ কাহিনী। পরে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সাথে দেখা করেন লিকাবো। তাদের নিরাপত্তার জন্য আবেদন করলে থানা পুলিশ নিরাপত্তা প্রদান করেন।

প্রেমিক নাইম জানান, ফেইসবুকে তাকে ব্রাজিলের মিউনেশিয়াল অ্যাসিসটেন্ট লিকাবো ফেন্ডস রিকুয়েস্ট পাঠায়। তাকে বন্ধু বানানোর পর দিন যতই যেতে থাকে তাদের দুজনের মধ্যে বন্ধুত্বের সম্পর্ক গাঢ় হতে থাকে।

সেই ব্রাজিলীয়ান তরুনীর ফেইসবুক প্রোফাইল দেখে নিন

নোয়াখাইল্লা সংস্কৃতির উপর প্রবল উৎসাহ ছিল লিকাবোর। সেই নিয়েই বেশিরভাগ সময় তিনি কথা বলতেন নাইমের সঙ্গে।

নোয়াখালীর ছেলে নাইমও তার ব্রাজিলিয়ান বান্ধবীকে বলতেন নিজের দেশের সংস্কৃতির কথা। গল্প করে শোনাতেন গ্রামের কথা শহরের কথা। কিন্তু বাংলা বুঝতেন না লিকাবো, ভাঙা ভাঙা ইংরেজীতেই তার সাথে যতটা আলাপ করা সম্ভব হয় করতেন নাইম।

দারাজ অনলাইন শপ থেকে মাত্র ২ টাকায় শীতের স্টাইলিশ হুডি জিতে নিন

ইংরেজীতে বেশ আধিপত্য থাকার দরুণ লিকাবোর সোশ্যাল মিডিয়ায় কথা বলতে খুব একটা অসুবিধা হতো না নাইমের। কয়েকদিন কথাবার্তার পর তাদের বন্ধুত্ব বেশ জমে উঠে।

সেইসঙ্গে লিকাবো আরও বেশি করে ভালো লাগতে শুরু করে নাইমের। তবে কিছুতেই নিজের ভালোলাগার কথা মুখ ফুটে বলতে পারছিলেন না নাইম।

অন্যদিকে লিকাবো একদিন নাইমকে জানায় যে সে একটি ছেলের প্রেমে পরেছে। লিকাবোর মুখে অন্য ছেলের কথা শুনে প্রচন্ড রেগে যায় নাইম। রাগের মাথায় দু-চারটে বাংলায় গালাগালি লিখে পাঠিয়ে দেয় সে। সেই সঙ্গে লিকাবো’কে তিনি এটাও জানায় যে সে তাকে ভালোবাসে।

লিকাবোর বাংলা গালাগালি প্রচন্ড পছন্দ হয়। নাইমের প্রোপোজ করার স্ট্যাইলও তার তাই খুবই পছন্দ হয়। তিনি নাইমকে সরাসরি জানায় তার প্রস্তাবে তিনি রাজি।

এক পর্যায়ে সে বাংলাদেশ সম্পর্কে জানতে এ দেশে আসতে চায়। নাইমের অনুমতি পাওয়ার পর তার বাড়িতে আসে লিকাবো। বিয়ে করতে চাইলে সে বিয়ে করবে বলে জানায়। তার পরিবারের সদস্যদের কোন বাঁধা নেই।

ঢাকাতেই নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে লিকাবো ইসলাম ধর্মগ্রহণ করে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তার পরিবারের সাথে একাধিকবার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কথা বলিয়ে দিয়েছেন নাইমকে। কয়েকদিনের জন্য তাকে আপন করে নিলেও লিকাবো নভেম্বরের ৩১ তারিখে নিজ দেশে ফিরে যায়। তবে সে দেশে ফিরে যাওয়ার পর নাইমকে ব্রাজিলে নিয়ে যাওয়ার সকল ব্যবস্থা করেছে লিকাবো।

নাইম আরো জানান, একটু ব্রাজিলে ঘুরতে যেতে চেয়েছিল সে। বিষয়টি এতোটাই আলোচিত হয় যে এ জন্য কয়েকদিন এক প্রকার আত্মগোপনেই থাকতে হয় তাকে। সম্প্রতি ব্রাজিল যাওয়ার সকল কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে নাইমেন। শ্রীঘই লিকাবোর আমন্ত্রণে ব্রাজিল যাবে সে।

আরো পড়ুন …

মেয়র হলে ঢাকায় সমকামিতা নিষিদ্ধ করে দেবো : হিরো আলম

পরকীয়ার প্রতি সবচেয়ে বেশি আসক্ত বরিশালের মহিলারা, বলছে গবেষণা

বয়সে বড় মেয়েদের টানে উত্তরবঙ্গের লক্ষ লক্ষ তরুন ছুটছে বরিশালের দিকে

নিজের চেয়ে বয়সে ছোট ছেলেদের পছন্দ করে বরিশালের মেয়েরা

তীব্র শীতে নেতিয়ে পরেছে মামুনের শলাকা, গোসসা করেছে তার বান্ধবী