Exclusive

টেডি ডে উপলক্ষ্যে প্রেমিকাকে ভাল্লুকের বাচ্চা উপহার দিয়ে অপদস্থ হলো বরিশালের টগর

টেডি বিয়ার বলতে মূলত ভাল্লুকের বাচ্চার অনুরূপ পুতুল বুঝায়। এই ধরনের পুতুলগুলো খুব আদুরে ধরনের আর কিউট হয় বলে মেয়েরা এই বস্তু খুব পছন্দ করে। রাতে ঘুমানোর সময় টেডির গলা জড়িয়ে ধরে ঘুমায়। ইনবক্সে কাউকে সেল্ফি দেয়ার সময় ঢং করে টেডি কোলে নিয়ে ছবি তুলে।

ভ্যালেন্টাইন অফারে Unilever এর পক্ষ থেকে জিতে নিন দুই জনের ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা এয়ার টিকেট ও পাঁচ তারা হোটেলে ৩ রাত ২ দিন থাকা খাওয়ার সুযোগ

আজ বিশ্ব টেডি দিবস। ফেব্রুয়ারি মাসের ভ্যালেন্টাইন উইকের চতুর্থ দিন। প্রতি বছর এই দিনটা টেডি ডে হিসেবে পালিত হয়। এই দিনে পছন্দের বান্ধবীদের টেডি বিয়ার উপহার দেয় অনেক ছেলেই।

জানা যায়, আজ সকাল দশটা নাগাদ টগর তার প্রেমিকা জুলেখার বাসার কলিং বেল বাজিয়ে দৌড়ে ছাদে চলে যায়। জুলেখার আম্মু দরজা খুলে দেখে কেউ নেই। এভাবে তিন-চার বার মজা করার পর টগর জুলেখাকে ফোন করে ছাদে উঠতে বলে। জুলেখা টগরের ডাক শুনে নাচতে নাচতে ছাদে গিয়ে টগরের সাথে দেখা করে।

মাত্র ৫০০ টাকায় পাঁচ তারা হোটেলের শেয়ার কিনে নিন

টগরের হাতের বড় বাক্সটা দেখে জুলেখা ভেবেছিলো টগর বোধহয় বেশ বড় একটা টেডি উপহার হিসেবে নিয়ে এসেছে। খুশিতে হাততালি দিতে দিতে সে বাক্সটা খুলে দেখে সেখানে টেডি নয়, বরঞ্চ একটা জীবন্ত ভাল্লুকের ছানা বসে বসে বাঁশের কঞ্চি চিবুচ্ছে। ভয়ে চিৎকার দিয়ে সেখানেই মূর্চ্ছা যায় জুলেখা। টগর যখন তার জ্ঞ্যান ফেরাতে ব্যাস্ত ঠিক তখনি ভাল্লুকের ছানাটি দৌড়ে পাশের বাড়ির ছাদ টপকে পালিয়ে যায়। ওদিকে জুলেখার চিৎকার শুনে দৌড়ে ছাদে চলে আসে জুলেখার আম্মু। এসেই দেখে জুলেখা মেঝেতে চেগিয়ে পরে আছে আর টগর তার মুখের উপর উপুর হয়ে কি যেন করছে।

জুলেখার আম্মু তখন টগরকে খুব শাসন করে।

মাত্র বিশ হাজার টাকায় Chinese বাইক জিতে নিন

পরে টগরের সাথে যোগাযোগ করে আমরা জানতে পারি, সে টেডি বিয়ার কি জিনিস তা জানতো না। তবে বিয়ার মানে যে ভাল্লুক সেটা তার বন্ধু জয়নাল জানতো। জয়নালের পরামর্শেই সে টেডি ডে উপলক্ষ্যে জুলেখার জন্যে ভাল্লুক যোগাড় করেছিলো।

খুব আফসোসের সাথে টগর জানায়, প্রায় মাসখানেক চেষ্টার পর মিরপুর চিড়িয়াখানা থেকে সে ভাল্লুকের বাচ্চাটা চুরি করতে পেরেছিলো।