Special

ভালোবাসা দিবস না পহেলা ফাল্গুন উদযাপিত হবে, এই তর্ক থেকে সংঘর্ষ ! আহত অর্ধশতাধিক

আজ বাংলা ফাল্গুন মাসের এক তারিখ, আর ইংরেজী ফেব্রুয়ারী মাসের চৌদ্দ তারিখ। বাংলা হিসেবে আজ ঋতুরাজ বসন্তের প্রথম দিন। বাঙালির উৎসবের দিন। আবার ইংরেজী ক্যালেন্ডারের হিসাব ধরলে আজ বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। প্রেমিক-প্রেমিকাদের প্রেম-সাগরে ডুব দিয়ে হারিয়ে যাবার সময়।

ভ্যালেন্টাইন অফারে Unilever এর পক্ষ থেকে জিতে নিন দুই জনের ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা এয়ার টিকেট ও পাঁচ তারা হোটেলে ৩ রাত ২ দিন থাকা খাওয়ার সুযোগ

প্রতি বছর এই দিন দু’টো পরপর দুই দিন আসলেও, এবছর চলে এসেছে একই দিনে। যার ফলে জনগণ ব্যাপক দ্বিধান্বিত হয়ে পরেছে, আসলে কোন দিনটা পালন করা উচিৎ। কোনটা বেশি তাৎপর্যময়!

সর্বস্তরের জনগণ মূলত দু’টি ভাগে বিভক্ত হয়ে পরেছে দুই ধরনের মতবাদ নিয়ে। একদল বলছে বসন্ত আমাদের বাঙালির ঐতিহ্য, আমাদের বসন্ত উৎসব করা উচিৎ। এই দলের সদস্যরা প্রায় সবাই প্রেমহীন অর্থাৎ সিঙ্গেল জনগণ। আবার অপরপক্ষ অর্থাৎ প্রেমিকসমাজের যুক্তি হচ্ছে ভালোবাসা দিবস হচ্ছে একটা আন্তর্জাতিক উৎসব। আমাদের দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলা উচিৎ।

অনলাইন শপ evaly থেকে মাত্র দুই হাজার টাকায় Chinese বাইক জিতে নিন

এরকমই এক যুক্তিতর্ক থেকে রাজধানী ঢাকার রামপুরা এলাকায় গতোকাল রাতে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

জানা যায়, এক চায়ের দোকানে ৮-১০ জন যুবকের একটা দল চা-সিগারেট খেতে খেতে উল্লেখিত তর্কে জড়ায়। পরে আশেপাশের অন্যান্য লোকজনও সেই তর্কে অংশগ্রহন করে। এক পর্যায়ে সিঙ্গেল সমাজের কয়েকটা ছেলে অতিরিক্ত উত্তেজিত হয়ে অপরপক্ষের গায়ে হাত তোলে। সেখান থেকেই তুলকালাম কাণ্ড ঘটে যায়। মারামারি শেষে গণনা করে দেখা যায় প্রায় অর্ধশতাধিক তরুন-যুবক-বৃদ্ধ সেখানে আহত অবস্থায় গড়াগড়ি করছে।

মাত্র ৫০০ টাকায় পাঁচ তারা হোটেলের শেয়ার কিনে নিন

প্রচন্ড মারামারিতে সেই চায়ের দোকান ধূলায় মিশে যায়। ওই এলাকার কয়েকটি বাড়িও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে।